অনির্ধারিত বৈঠকে এরশাদ জাতীয় পার্টির রাজনীতি জনগণের কাছে স্পষ্ট করতে হবে

 

প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি ২০১৬ :

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, জাতীয় পার্টির রাজনীতিকে জনগণের কাছে স্পষ্ট করতে হবে। তিনি বলেন, আমরা এদেশে ধর্মীয় মূল্যবোধে বিশ্বাসী  জাতীয়তাবাদী শক্তি। স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ সকল জাতীয়তাবাদী শক্তিকে জাতীয় পার্টির পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে।


সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ, আজ শনিবার তার বনানীস্থ কার্যালয়ের মিলনায়তনে পার্টির সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের সাথে এক অনির্ধারিত সভায় বক্তব্য রাখছিলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জাতীয় পার্টির কো-েেচয়ারম্যান  জি.এম. কাদের, পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, এমএ সাত্তার, গোলাম হাবিব দুলাল, গোলাম কিবরিয়া টিপু, আলহাজ সাহিদুর রহমান টেপা, এ্যাড. শেখ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, সৈয়দ মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, মাসুদ পারভেজ (সোহেল রানা), হাবিবুর রহমান, মিঃ সুনীল শুভরায়, এস এম ফয়সল চিশতী, মীর আব্দুস সবুর আসুদ, হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, এ্যাডঃ মহসিন রশীদ, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা- দিদার বখত, ব্যারিষ্টার শামীম হায়দার পাটুয়ারী, ভাইস চেয়ারম্যান- নাসরিন জাহান রতনা এমপি, শেখ সৈয়দ হুসেইন মুহম্মদ নূরুল আমিন শানু চৌকদার, আব্দুর রাজ্জাক খান, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, যুগ্ম মহাসচিব হাজী আবু বকর, জহিরুল ইসলাম জহির, মোঃ দেওয়ান আলী, আরিফুর রহমান খান, বাহাউদ্দিন আহমেদ বাবুল, নূরুল ইসলাম নুরু, এ্যাডঃ নূরুল ইসলাম তালুকদার এমপি, আলহাজ্ব শওকত চৌধুরী এমপি, মোঃ নোমান মিয়া এমপি, সাংগঠনিক সম্পাদক দিদারুল আলম দিদার, শাজাহান সরদার, কাজী আশরাফ সিদ্দিকী, মোঃ জহিরুর আলম রুবেল, পার্টির কোষাধ্যক্ষ মেজর খালেদ আখতার (অবঃ), ছত্র বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল হামিদ ভাসানী, য্গ্মু প্রচার সম্পাদক মোঃ বেলাল হোসেন, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক জসিম উদ্দিন ভূঁইয়া, জাতীয় ছাত্র সমাজের সভাপতি সৈয়দ ইফতেখার হাসান, জাতীয় মহিলা পার্টির সাধারণ সম্পাদক মৌসুমী, কেন্দ্রীয় সদস্য মোল্লা মুজিবর রহমান, মোঃ রেজাউল করিম, এনাম জয়নাল আবেদীন, মাওলানা মোঃ শাজাহান, আব্দুর রাজ্জাক খান, গোলাম মোস্তাফা, নির্মল দাস সুমন আশরাফ প্রমুখ।


সাবেক রাষ্ট্রতি এরশাদ, গোলাম মোহাম্মদ কাদেরকে পার্টির কো-চেয়ারম্যান এবং এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদারকে পার্টির মহাসচিব পদে নিয়োগ করায় ঢাকায় অবস্থানরত জাতীয় পার্টির সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা সাবেক রাষ্ট্রপাতি, কো-চেয়ারম্যান এবং মহাসচিবকে অভিনন্দন জানাতে পার্টি অফিসে সমবেত হয়েছিলেন। এসময় তাদের উদ্দেশ্যে সাবেক রাষ্ট্রপতি, কো-চেয়ারম্যান এবং মহাসচিব বক্তব্য রাখেন।


সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ বলেন, দলের প্রয়োজনেই আমি কো-চেয়ারম্যান নিয়োগ এবং মহাসচিব পদে পরিবর্তন এনেছি। এই পরিবর্তনে সারাদেশে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। দল আবার জেগে  উঠেছে। আমরা পার্টিকে এবার আরো সুসংগঠিত করতে পারবো। আমরা অবশ্যই এই সংসদের বিরোধী দল। আশা করি, আমাদের সংসদ সদস্যরা সংসদে এমন কোন বক্তব্য রাখবেন না যাতে করে জনমনে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাঁর বিশেষ দূত করে আমাকে সম্মানিত করেছেন। তাঁর সাথে আলাপ-আলোচনা না করে এই পথ ছেড়ে দিয়ে তাঁকে অসম্মানিত করতে পারিনা। অবশ্যই এ বিষয়ে আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলোচনা করবো। জাতীয় পার্টিকে শক্তিশালী করা হলে সংসদ আরো কার্যকর হবে এবং সরকারও লাভবান হবে।